ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ ২০২০ : পশ্চিমবঙ্গের সংখ্যালঘু মেধাবী ছাত্র ছাত্রী দের জন্য

এখান থেকে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  

পরিচ্ছেদসমূহ

ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ ২০২০

Aikyashree Scholarship 2020 WBMDFC- Minority Students Apply Online, Eligibility, Status Check


ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ ২০২০ : পশ্চিমবঙ্গের সংখ্যালঘু ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ ২০২০ এর অনলাইন আবেদন পদ্ধতি, যোগ্যতা ও অন্যান্য তথ্য। পশ্চিমবঙ্গের সংখ্যালঘু মেধাবী ছাত্র ছাত্রী দের জন্য নতুন ৩টি বৃত্তি প্রকল্প রয়েছে, যেমন – প্রি-ম্যাট্রিক, পোষ্ট-ম্যাট্রিক ও স্বামী বিবেকানন্দ মেরিটকাম মিনস স্কলারশিপ। এই বৃত্তি প্রকল্পের নাম Aikyashree Scholarship নামে নামাঙ্কিত করা হয়েছে । পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যালঘু উন্নয়ন দপ্তরের [West Bengal Minorities’ Department & Finance Corporation (WBMDFC)] সহায়তায় এই ঐক্যশ্রী প্রকল্পটি চালু হয়, এর মাধ্যমে প্রথম শ্রেণী থেকে পি এইচ ডি কোর্সে পাঠরত ছাত্রছাত্রীরা অনলাইনে বিভিন্ন স্কলারশিপের জন্য আবেদন করতে পারবে।

বৃত্তির নামঐক্যশ্রী স্কলারশিপ (Aikyashree Scholarship)
বিতরিত হচ্ছেWBMDFC-দ্বারা
যোগ্য প্রার্থীসংখালঘু সম্প্রদায় (শিখ, জৈন, বৌদ্ধ, মুসলিম, পারসি, খ্রিষ্টান )
Scholarship CategoryPre Matric, Post Matric, SVMCM, TSP
Eligible CoursesClass I to Ph.D Course
ওয়েবসাইট www.wbmdfcscholarship.gov.in
আবেদন শুরু1st August 2020
আবেদন শেষ15th November 2020
আবেদন করা হবেঅনলাইনে

♦ ঐক্যশ্রী প্রকল্পের লক্ষ-

ঐক্যশ্রী প্রকল্পের (Aikyashree Scholarship) কিছু পরিকল্পিত লক্ষ বা উদ্দেশ্য রয়েছে। যেমন-

১) পিছিয়ে পড়া সংখ্যালঘু ছাত্র-ছাত্রীদের বিদ্যালয়ে পাঠানো এবং ড্রপ আউট হার কমানো।

২) পশ্চিমবঙ্গের সংখ্যালঘু ছাত্র-ছাত্রীদের উচ্চশিক্ষার খরচ বহনের মাধ্যমে তাদের আর্থিক ভাবে সাহায্য করা।

৩) ছাত্র ছাত্রীরা যাতে দ্রুত স্কলারশিপের টাকা পায় তার ব্যবস্থা করা এবং সহজে ও কোন ঝামেলা ছাড়া বিভিন্ন স্কলারশিপ এর জন্য অনলাইনে আবেদন। প্রভৃতি

ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ ২০২০
ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ ২০২০

♦ ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ প্রকল্পর মধ্যে কি কি স্কলারশিপের সুবিধা রয়েছে?

বর্তমানে পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যালঘু উন্নয়ন দপ্তর ঐক্যশ্রী প্রকল্পের আওতায় নিম্নলিখিত চার ধরনের স্কলারশিপ প্রদান করছে –

১) প্রি-ম্যাট্রিক স্কলারশিপ (প্রথম থেকে দশম শ্রেণীর ছাত্র ছাত্রীদের জন্য)

২) পোষ্ট-ম্যাট্রিক স্কলারশিপ (একাদশ থেকে Ph.D কোর্স পর্যন্ত)

৩) মেরিট কাম মিনস স্কলারশিপ (টেকনিক্যাল ও প্রফেশনাল কোর্সের ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য)

৪) ট্যালেন্ট সাপোর্ট স্কলারশিপ (TSP)

৫) সংখ্যালঘু শিক্ষার্থীদের জন্য স্বামী বিবেকানন্দ মেধা সহ অর্থ বৃত্তি (SVMCM)


স্বামী বিবেকানন্দ মেরিট-কাম মিনস্ স্কলারশিপ


♦ ঐক্যশ্রী প্রকল্পে আওতায় বিভিন্ন স্কলারশিপে আবেদনের জন্য প্রয়োজনীয় যোগ্যতা

(১) প্রি-ম্যাট্রিক ও পোষ্ট-ম্যাট্রিক স্কলারশিপ-

ঐক্যশ্রী প্রকল্পের অধীনে প্রি-ম্যাট্রিক অথবা পোষ্ট-ম্যাট্রিক স্কলারশিপের অনলাইনে আবেদনের জন্য প্রয়োজনীয় যোগ্যতা গুলি হল –

  • আবেদনকারীকে অবশ্যই একজন পশ্চিমবঙ্গের স্থায়ী অধীবাসি হতে হবে।
  • আবেদনকারীকে অবশ্যই কোন স্কুল, কলেজ, ইউনিভার্সিটি বা প্রতিষ্ঠানে পাঠরত থাকতে হবে প্রতিষ্ঠানটি অবশ্যই কোন নির্দিষ্ট শিক্ষা বোর্ড / কাউন্সিল / ইউনিভার্সিটি স্বীকৃত হতে হবে।
  • যে সমস্ত ছাত্র-ছাত্রী ১ম শ্রেণি থেকে ১০ম শ্রেণিতে পাঠরত তারা প্রি-ম্যাট্রিক বা Pre-matric স্কলার্শিপ এর জন্য আবেদন করতে পারবে।
  • যে সমস্ত ছাত্রছাত্রী উচ্চমাধ্যমিক, ITI, Diploma, Graduation, Post Graduation, M.Phil, B.Ed সে পাঠরত তারা পোস্ট ম্যাট্রিক স্কলারশিপ এর জন্য আবেদন করতে পারবে।
  • শেষ পরীক্ষায় আবেদনকারীকে অবশ্যই ন্যূনতম ৫০% নাম্বার নিয়ে পাশ করে থাকতে হবে।
  • আবেদনকারীর বাৎসরিক পারিবারিক আয় ২ লক্ষ টাকার বেশি হওয়া চলবে না।
  • কোন ছাত্র বা ছাত্রী যদি পশ্চিমবঙ্গের বাইরের কোন প্রতিষ্ঠান থেকে পড়াশোনা করে, তাহলে সে এই স্কলারশিপের জন্য আবেদন করতে পারবে না।

(২) ‘মেরিট কাম মিনস স্কলারশিপ’ ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ

স্মেরিটকাম মিনস্ স্কলারশিপের জন্য অনলাইনে আবেদনের প্রয়োজনীয় যোগ্যতা গুলি নিচে আলোচনা করা হলো।

  • আবেদনকারীকে অবশ্যই পশ্চিমবঙ্গের একজন স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে।
  • যে সমস্ত ছাত্রছাত্রী স্নাতক অথবা স্নাতকোত্তর স্তরে পাঠরত পশ্চিমবঙ্গের স্বীকৃত বিশ্ববিদ্যালয়গুলির অধীনে স্বীকৃত প্রতিষ্ঠান থেকে কারিগরি পেশাগত কোর্সে পাঠরত। পশ্চিমবঙ্গের বাইরে ও ভেতরে বসবাসকারী যে সমস্ত ছাত্রছাত্রী IIT, IIM, NIT, NIFT, IFFT ইত্যাদি তালিকাভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পড়াশোনা করছে তারা এই স্কলারশিপের জন্য আবেদন করতে পারবে।
  • পারিবারিক আয় বছরে ২.৫০ লক্ষ টাকার কম হতে হবে।
  • আবেদনকারীকে অবশ্যই শেষ পরীক্ষায় কমপক্ষে 50 শতাংশ নম্বর পেতে হবে।

(৩) স্বামী বিবেকানন্দ মেরিটকাম মিনস স্কলারশিপ (SVMCM)

একাদশ থেকে স্নাতকোত্তর শ্রেণী পর্যন্ত মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য পশ্চিমবঙ্গ সরকার স্বামী বিবেকানন্দ মেরিটকাম মিনস স্কলারশিপ (SVMCM) প্রদান করে থাকে। এই স্কলারশিপে অনলাইন আবেদনের জন্য প্রয়োজনীয় যোগ্যতা গুলি হল-

  • শিক্ষার্থীকে পশ্চিমবঙ্গের একজন স্থায়ী অধিবাসী হতে হবে।
  • শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি পশ্চিমবঙ্গের মধ্যে অবস্থিত হতে হবে।
  • যে সমস্ত শিক্ষার্থী এই রাজ্যের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে পড়াশোনা করছে তারা মাধ্যমিক / উচ্চমাধ্যমিক / মাদ্রাসা এডুকেশন এবং পশ্চিমবঙ্গের অন্যান্য স্বীকৃত বোর্ড থেকে পাস করার পর যোগ্য বলে বিবেচিত হবে।
  • ছাত্র-ছাত্রীদের শুধু বর্তমান বর্ষে অর্থাৎ ২০২০ পাশ করতে হবে।
  • পারিবারিক বাৎসরিক আয় ২.৫০ লক্ষ্য টাকার মধ্যে হতে হবে।
বর্তমান পাঠরত কোর্সবিগত পরীক্ষায় প্রাপ্ত ন্যূনতম নম্বর
উচ্চ মাধ্যমিক, পলিটেকনিক ও স্নাতক75%
স্নাতকোত্তর53% অনার্স বিষয়ে
ইঞ্জিনিয়ারিং-এ মাস্টার ডিগ্রী55% ইঞ্জিনিয়ারিং-এ

স্বামী বিবেকানন্দ স্কলারশিপ (সংখ্যালঘু শিক্ষার্থীদের জন্য)


(৪) ট্যালেন্ট সাপোর্ট প্রকল্পের অধীনে পোস্ট-ম্যাট্রিক স্টাইপেন্ড (TSP)

একাদশ ও তার বেশি শ্রেণী স্তরে ৫০% কম নাম্বার প্রাপ্ত শিক্ষার্থীরা স্কলারশিপের জন্য অনলাইনে আবেদন করতে পারবে।

সমস্ত শিক্ষার্থী‌ Higher Secondary, Graduation, Post Graduation, Ph.D, M.Phil প্রভৃতি কোর্সে পাঠরত (কারিগরি ও পেশাদারি কোর্স ছাড়া) তারাই স্কলারশিপের জন্য যোগ্য।

বিগত ফাইনাল পরীক্ষায় ৫০% এর কম নম্বর পেয়ে পাশ করেছে এমন শিক্ষার্থীরা আবেদন করতে পারবে।

আবেদনকারীর পারিবারিক বাৎসরিক আয় ২ লক্ষ টাকার মধ্যে হতে হবে।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি পশ্চিমবঙ্গের মধ্যে অবস্থিত হতে হবে।

♦ ঐক্যশ্রী প্রকল্পে স্কলারশিপের জন্য টাকার পরিমান

নিচের ছকটিতে দেয়া হলো যে, কোন স্কলারশিপের জন্য কত টাকা অনুমোদন পাওয়া যাবে।

প্রি-ম্যাট্রিক স্কলারশিপ (প্রথম থেকে দশম শ্রেণীর ছাত্র ছাত্রীদের জন্য)বছরে ১,১০০ থেকে ১১,০০০ টাকা পর্যন্ত
পোষ্ট-ম্যাট্রিক স্কলারশিপ (একাদশ থেকে Ph.D কোর্স পর্যন্ত)বছরে ১০,২০০ থেকে ১৬,৫০০ টাকা পর্যন্ত
মেরিট কাম মিনস স্কলারশিপ (টেকনিক্যাল ও প্রফেশনাল কোর্সের ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য)বছরে ২২,০০০ থেকে ৩৩,০০০ টাকা পর্যন্ত
স্বামী বিবেকানন্দ মেরিটকাম মিনস স্কলারশিপবছরে ১২,০০০ থেকে ৬০,০০০ টাকা পর্যন্ত
ট্যালেন্ট সাপোর্ট স্কলারশিপ (TSP)বছরে ২,৫০০ থেকে ৪,৯০০ টাকা পর্যন্ত

বিঃ দ্রঃ স্কলারশিপের টাকার পরিমান বিভিন্ন ক্ষেত্রের উপর নির্ভর করে, যেমন – আবেদনকারীর বর্তমান শ্রেণি, হোস্টেলে থাকে কিনা ইত্যাদি।

♦ ঐক্যশ্রী স্কলারশিপের অনলাইনে আবেদন পদ্ধতি

ঐক্যশ্রী প্রকল্পের বিভিন্ন স্কলারশিপে আবেদনের পদ্ধতিটি নিচে ধাপে ধাপে দেখানো হলো-

  1. আবেদনকারীকে ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ প্রকল্পের অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে যেতে হবে। এই ওয়েবসাইটটির লিঙ্ক হল wbmdfcscholarship.gov.in
  2. এর পর New Registration লিঙ্কে ক্লিক করে নিজের প্রতিষ্ঠানটির জেলা বাছতে হবে বেশ কিছু স্টুডেন্ট ইনফরমেশন পুরণ করতে হবে।
  3. তারপর SUBMIT and PROCEED বাটনে ক্লিক করতে হবে।
  4. এরপর আবেদনকারীকে Scheme Eligibility ফর্মটি ফিলাপ করে সাবমিট করতে হবে। পরবর্তী ধাপে আবেদনকারী দেখতে পাবে যে সে কোন কোন স্কলারশিপের জন্য যোগ্য।
  5. এখন আবেদনকারীকে তার User ID ও Password টি অবশ্যই খাতায় লিখে নিতে হবে। এই তথ্য দ্বারা সে পরবর্তীকালে Login করতে পারবে।
  6. ওয়েবসাইটে Student Login করার পর, শিক্ষার্থীকে তার কিছু Basic Information, Academic Information ও Bank Account Information আপডেট করতে হবে।
  7. সমস্ত তথ্য সঠিকভাবে দেওয়ার পর, অনলাইন অ্যাপ্লিকেশন ফর্মটির একটি preview দেখা যাবে। Final Submit করার আগে আর একবার ভালো করে সমস্ত তথ্য দেখে নাও।
  8. এবার Verify and Lock Application বটনে ক্লিক করে স্কলারশিপের আবেদন ফরমটি জমা দিতে হবে। এরপর আর কোন তথ্য পরিবর্তন করা যাবে না।
  9. এখন নিজের অ্যাপ্লিকেশন ফর্মটি প্রিন্ট করে নিতে হবে।
  10. অনলাইন আবেদন পত্রের প্রিন্ট আউট এর সাথে নিজের ব্যাংকের পাস বইয়ের ফটোকপি (যাতে অ্যাকাউন্ট নাম্বার ও IFSC কোড আছে) এবং বার্ষিক পারিবারিক আয়ের স্বঘোষনা পত্র (যদি প্রয়োজন হয়) নিজের বিদ্যালয় জমা দিতে হবে।

♦ ঐক্যশ্রী প্রকল্প স্কলারশিপের জন্য প্রার্থী বাছাই পদ্ধতি

ঐক্যশ্রী প্রকল্প স্কলারশিপের জন্য প্রার্থী বাছাই করা হবে তাদের Academic Qualifications ও আর্থিক অবস্থার উপর ভিত্তি করে। স্কলারশিপ রিনুয়াল করার জন্য আবেদনকারীকে অবশ্যই শেষ পরীক্ষায় ৫০% নম্বর পেতে হবে।

♦ ঐক্যশ্রী বৃত্তি যোজনা এর জন্য জরুরি নির্দেশিকা

১) পশ্চিমবঙ্গে স্থায়ীভাবে বসবাসকারী ছাত্র ছাত্রী- ই যোগ্য বলে বিবেচিত হবে। পশ্চিমবঙ্গের সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের (বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান, জৈন, মুসলিম, পারসি ও শিখ) মেধাবী ও দরিদ্র ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য এই স্কলারশিপ।

২) আবেদনকারীকে শেষ পরীক্ষায় কমপক্ষে ৫০ শতাংশ নম্বর পেতে হবে ( প্রথম শ্রেণীর জন্য প্রযোজ্য নয় )

৩) একজন পড়ুয়া একটি প্রতিষ্ঠান থেকেই বৃত্তি পাবেন।

৪) আবেদন রেজিস্ট্রেশনের সময় আবেদনকারীকে মাত্র একটি মোবাইল নম্বর ব্যবহার করতে হবে। তবে প্রি-ম্যাট্রিক স্কলারশিপের ক্ষেত্রে দুটি মোবাইল নম্বর দেওয়া যাবে।

৫) ব্যাঙ্ক পাসবইয়ের ফটোকপি সহ অ্যাকাউন্ট নম্বর ও আইএফএসসি কোড আবেদন পত্রে উল্লেখ করতে হবে।

৬) আবেদন করার পর আবেদনকারীকে আবেদন পত্রের প্রিন্ট সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানে জমা দিতে হবে।

৭) Distance Education পাঠরত শিক্ষার্থীরা আবেদন করতে পারবে না।

৮) স্কলারশিপ আবেদনের স্ট্যাটাস জানার জন্য, ঐক্যশ্রী প্রকল্পের ওয়েবসাইটে নিজের User ID দিয়ে login করতে হবে।

৯) পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যালঘু উন্নয়ন ও বিত্ত নিগম (WBMDFC) সম্পূর্ণ প্রক্রিয়াটি নিয়ন্ত্রণ করবে।

♦ ঐক্যশ্রী প্রকল্পে আবেদনের তারিখ-

ঐক্যশ্রী প্রকল্পের অধীনে স্কলারশিপে আবেদন শুরু ১ আগস্ট থেকে এবং আবেদনের শেষ তারিখ ১৫ নভেম্বর ২০২০

♦ ঐক্যশ্রী স্কলারশিপে পূনঃনবীকরণ-

যে সমস্ত ছাত্রছাত্রী ২০১৯-২০ সালে ইতিমধ্যেই minority scholarship / ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ পেয়েছেন, তাঁরা কেবল রিনিউয়াল বিভাগেই আবেদন করতে পারবেন।

♦ ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ এর বিশেষ হেল্প লাইন নং

কোনো সমস্যা হলে হেল্পলাইন নং : 1800-120-2130

হোয়াটস্যাপ নং : 8017071714

টেকনিক্যাল হেল্পলাইন : 6290875550

3.5 2 votes
Article Rating

Students Care

স্টুডেন্টস কেয়ারে সকলকে স্বাগতম! বাংলা ভাষায় জ্ঞান চর্চার সমস্ত খবরা-খবরের একটি অনলাইন পোর্টাল "স্টুডেন্ট কেয়ার"। পশ্চিমবঙ্গের সকল বিদ্যালয়, মহাবিদ্যালয় ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের এবং সমস্ত চাকুরী প্রার্থীদের জন্য, এছাড়াও সকল জ্ঞান পিপাসু জ্ঞানী-গুণী ব্যক্তিবর্গদের সুবিধার্থে আমাদের এই ক্ষুদ্র প্রচেষ্টা। 

Subscribe
Notify of
guest

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

2 Comments
Most Voted
Newest Oldest
Inline Feedbacks
View all comments
error: স্টুডেন্টস কেয়ার কতৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত !!