শনি গ্রহের উপগ্রহের সংখ্যা ৮২! বৃহস্পতিকে পেছনে ফেলে সেরা ‘শনি’!

এখান থেকে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  

শনি গ্রহের উপগ্রহের সংখ্যা কত?

সৌরজগতের দ্বিতীয় বৃহত্তম গ্রহ শনির চারপাশে নতুন ২০টি উপগ্রহের সন্ধান পাওয়া গেছেইন্টারন্যাশনাল অ্যাস্ট্রোনোমিক্যাল ইউনিয়নের মাইনর প্লানেট সেন্টার এসব উপগ্রহ বা চাঁদ আবিষ্কারের খবর জানিয়েছে মহাকাশ বিজ্ঞানীরা। এ নিয়ে শনি গ্রহের উপগ্রহের সংখ্যা দাঁড়ালো ৮২টিতে। এতে সৌরজগতের সবচেয়ে বেশি উপগ্রহ থাকা গ্রহ বৃহস্পতিকে পেছনে ফেললো শনি। বৃহস্পতির উপগ্রহের সংখ্যা ৭৯টি উপগ্রহের সংখ্যায় শনি প্রথম স্থানে থাকলেও সৌরজগতের সবচেয়ে বড় উপগ্রহ- গ্যানিমেড বৃহস্পতিরই অধীনে রয়েছে, যার আয়তন পৃথিবীর প্রায় অর্ধেক।

⇒ শনি গ্রহের সংক্ষিপ্ত পরিচয়:

শনি (ইংরেজি নাম: Saturn; স্যাটার্ন) হল সূর্য থেকে দূরত্বের নিরিখে ষষ্ঠ গ্রহ এবং বৃহস্পতির পরই সৌরজগতের দ্বিতীয়-বৃহত্তম গ্রহ। এটি একটি গ্যাসীয় দৈত্য, যার ব্যাসার্ধ পৃথিবীর ব্যাসার্ধের প্রায় নয় গুণ। শনি গ্রহের গড় ঘনত্ব অবশ্য পৃথিবীর গড় ঘনত্বের এক-অষ্টমাংশ। কিন্তু এই গ্রহের বৃহত্তর আয়তনের জন্য এটি পৃথিবীর তুলনায় ৯৫ গুণ বেশি ঘন।

⇒ শনি গ্রহের নামকরণ কিভাবে হল?

শনি গ্রহের বাংলা নামটি এসেছে হিন্দু গ্রহদেবতা শনির নাম থেকে। অন্যদিকে ইংরেজি নাম স্যাটার্ন এসেছে রোমান কৃষিদেবতা স্যাটার্নের নাম থেকে এবং শনির জ্যোতির্বৈজ্ঞানিক চিহ্নটি (♄) উক্ত রোমান দেবতার কাস্তের প্রতীক।

⇒ শনি গ্রহের সংক্ষিপ্ত কিছু তথ্য-

  • শনি গ্রহ আবিষ্কার করেন – কোপারনিকাস
  • সূর্য থেকে দূরত্ব- ১৪২.৭ কোটি কিমি
  • নিরিক্ষীয় ব্যাস- প্রায় ১২০৫৩৬ কিমি
  • আবর্তনের সময়- প্রায় ১০ ঘন্টা
  • পরিক্রমনের সময়- প্রায় ২৯ বছর ৬ মাস
  • উষ্ণতা- -১৮৪ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড
  • উপগ্রহ সংখ্যা- ৮২ টি (বিস্তারিত আলোচিত হয়েছে)

⇒ শনির বর্তমান উপগ্রহ সংখ্যা কয়টি?

বর্তমানে মূলত শনি গ্রহের রয়েছে ৮২ টি উপগ্রহ। ইন্টারন্যাশনাল অ্যাস্ট্রোনোমিক্যাল ইউনিয়নের মাইনর প্লানেট সেন্টার সূত্রে সৌরজগতের দ্বিতীয় বৃহত্তম গ্রহ শনির চারপাশে নতুন ২০টি উপগ্রহের সন্ধান মিলেছে। সুতরাং, এ নিয়ে শনির উপগ্রহের সংখ্যা দাঁড়ালো মোট ৮২টিতে। এতে সৌরজগতের সবচেয়ে বেশি উপগ্রহ থাকা গ্রহ বৃহস্পতিকে পেছনে ফেললো শনি। বর্তমানে বৃহস্পতির উপগ্রহের সংখ্যা ৭৯টি।

[আরও পড়ুন- বৃহস্পতির উপগ্রহ সংখ্যা এখন ৭৯ টি]

নতুন উপগ্রহ আবিষ্কারক দলের নেতৃত্ব দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের কার্নেজি ইন্সটিটিউট ফর সায়েন্সের বিজ্ঞানী স্কট শেফার্ড। তিনি জানান- “নতুন ২০ উপগ্রহের মাধ্যমে শনি গ্রহ বৃহস্পতিকে পেছনে ফেললেও সৌরজগতের সবচেয়ে বড় উপগ্রহ বৃহস্পতিকে কেন্দ্র করেই ঘুরছে। এসব উপগ্রহ বেশ ছোট। প্রতিটির ব্যাস পাঁচ কিলোমিটার।“

শনি গ্রহের রয়েছে ৮২ টি উপগ্রহেরমধ্যে মাত্র ৫৩ টি উপগ্রহের একটি নির্দিষ্ট নাম রাখা হয়েছে। বাকি গুলির নাম রাখার কাজ চলছে। শনির বলয়ে এরকম কয়েকশ ছোটো ছোটো চাঁদ বা উপগ্রহ হয়েছে, যাদের ব্যাস মাত্র ৪০-৫০০ মিটার এর মধ্যে। ফলত এদের উপগ্রহের তালিকাতে স্থান দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না। টাইটান উপগ্রহটি সবচেয়ে বড়। পৃথিবীর একমাত্র উপগ্রহ চাঁদের সাথে তুলনা করলে এটি ব্যাসে প্রায় ১৪৮% বড়। এছাড়া ১০ কিমি ব্যাসের প্রায় ৩৪টি উপগ্রহ; ১০-৫০ কিমি ব্যাস যুক্ত ১৪টি উপগ্রহ বা চাঁদ রয়েছে শনি গ্রহের। ১৬১০ খ্রীষ্টাব্দে গ্যালিলিও সর্বপ্রথম শনি গ্রহের বলয়টি তাঁর টেলিস্কোপের মাধ্যমে পর্যবেক্ষণ করেছিলেন।

⇒ শনি গ্রহের আবিষ্কৃত নতুন ২০টি উপগ্রহ সম্পর্কে তথ্যাবলী-

চাঁদগুলি হাওয়াইয়ের মৌনাকিয়ায় অবস্থিত সুবারু টেলিস্কোপ ব্যবহার করে আবিষ্কার করা হয়েছে। বিজ্ঞানীদের মতে, শনি গ্রহকে কেন্দ্র করে যে সকল বস্তুগুলি (উপগ্রহ) তাদের কক্ষপথে ঘুরেবেড়াচ্ছে তাদের ব্যাস প্রায় ৫ কিমি (৩ মাইল)।

নতুন আবিষ্কৃত ২০ টি উপগ্রহের মধ্যে, ১৭ টি উপগ্রহ শনি গ্রহের আবর্তনের উলটোপথে আবর্তন করছে। এদের কে বলা হয় “প্রত্যাবর্তন বা retrograde”। বাকি ৩টি উপগ্রহ “অগ্রগতি বা Prograde”, অর্থাৎ এরা শনি গ্রহের আবর্তনের দিকেই আবর্তিত হচ্ছে। নিচের ছবিটি লক্ষ করলে বুঝতে পারবেন।

শনি গ্রহের আবিষ্কৃত নতুন ২০টি উপগ্রহ
শনি গ্রহের আবিষ্কৃত নতুন ২০টি উপগ্রহ

সকল রিট্রোগ্রেড উপগ্রহগুলি শনি গ্রহকে একবার প্রদক্ষিণ করতে সময় নিচ্ছে প্রায় ৩ বছর সময়। আর যে উপগ্রহগুলো শনির অক্ষের মতো একই দিকে ঘুরছে, অর্থাৎ, প্রোগ্রেড উপগ্রহ গুলির মধ্যে ২টি শনি গ্রহটির একটু কাছাকাছি আছে, এরা গ্রহটিকে একবার প্রদক্ষিণ করতে সময় নিচ্ছে প্রায় ২ বছর সময় (ছবিতে নীল রঙ দ্বারা চিহ্নিত)। এবং বাকি ১টি প্রোগ্রেড উপগ্রহ শনিকে আবর্তন করতে ৩ বছর সময় নিচ্ছে (ছবিতে সবুজ রঙ দ্বারা চিহ্নিত) ।

শেফার্ডের মতে, শনি গ্রহের আশেপাশে আরো প্রায় ১০০টি উপগ্রহ রয়েছে। আরো শক্তিশালী টেলিস্কোপ দিয়ে ভবিষ্যতে এগুলো আবিষ্কার করা সম্ভব হতে পারে। গত বছর শেফার্ড বৃহস্পতির চারপাশে ১২টি নতুন উপগ্রহ আবিষ্কার করেছিলেন এবং সেই হিসেবে বৃহস্পতিই এতদিন সৌরজগতের সবচেয়ে বেশি উপগ্রহ ধারণ করেছিল।

সূত্র- BBC NEWS

Students Care

স্টুডেন্টস কেয়ারে সকলকে স্বাগতম! বাংলা ভাষায় জ্ঞান চর্চার সমস্ত খবরা-খবরের একটি অনলাইন পোর্টাল "স্টুডেন্ট কেয়ার"। পশ্চিমবঙ্গের সকল বিদ্যালয়, মহাবিদ্যালয় ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের এবং সমস্ত চাকুরী প্রার্থীদের জন্য, এছাড়াও সকল জ্ঞান পিপাসু জ্ঞানী-গুণী ব্যক্তিবর্গদের সুবিধার্থে আমাদের এই ক্ষুদ্র প্রচেষ্টা। 

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: স্টুডেন্টস কেয়ার কতৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত !!