কার্স্ট অঞ্চলের বিভিন্ন ভূমিরূপ কীরূপে সৃষ্টি হয় তার সচিত্র ব্যাখ্যা দাও।

পোস্টটি শেয়ার করুন
5/5 - (1 vote)

আজকে ২০১৯ সালের উচ্চমাধ্যমিকে ইতিহাস বিষয়ে আসা বড়ো প্রশ্নের উত্তর গুলি নিয়ে আলোচনা করা হল। আজকের প্রশ্ন হল কার্স্ট অঞ্চলের বিভিন্ন ভূমিরূপ কীরূপে সৃষ্টি হয় তার সচিত্র ব্যাখ্যা দাও। উত্তরটি নিচে দেওয়া হল-

কার্স্ট অঞ্চলের বিভিন্ন ভূমিরূপ কীরূপে সৃষ্টি হয় তার সচিত্র ব্যাখ্যা দাও।

কার্স্ট অঞ্চলে দ্রবণ কাজের ফলে ভূ-পৃষ্ঠে ও ভূগর্ভে বিভিন্ন ধরনের ভূমিরূপ গঠিত হয়। টেরারোসা, গ্রাইকস ও ক্লিন্ট, সিঙ্কু হোল ও সোয়ালো হোল,ডোলাইন, উভালা, পোলজি, কার্স্ট জানালা, শুযূ ও অন্ধ উপত্যকা, স্ট্যালাকটাইট ও স্ট্যালাগমাইট প্রভৃতি । এগুলির মধ্যে প্রধান চারটি ভূমিরূপের সচিত্র বিবরণ দেওয়া হল

(i) গ্রাইক ও ক্লিন্ট-

কার্বোলিক অ্যাসিড মিশ্রিত বৃষ্টির জলের দ্রবণের ফলে কার্স্ট অঞ্চলের দারণ বা সংযুক্তিগুলি ক্ষয় পেয়ে ক্রমশ গভীর হতে থাকে এবং আয়তনে বৃদ্ধি পায়। পরস্পর ছেদী এরূপ দারণগুলি সম্প্রসারিত হয়ে সংকীর্ণ লম্বা খাত এবং তার মধ্যবর্তী অংশে সংকীর্ণ সূচালো উচ্চভূমি সৃষ্টি করে। দীর্ঘ ও গভীর খাতগুলিকে ইংল্যান্ডে গ্রাইক, ফ্রান্সে ল্যাপিয়ে এবং জার্মানিতে কারেন বলে। গ্রাইকের মধ্যবর্তী সমতল সূচালো উচ্চভূমিকে ক্লিন্ট বলা হয়। ভারতের দ্রুগ জেলায় গ্রাইক ও ক্লিন্ট দেখা যায়।

(ii) সিঙ্ক হোল ও সোয়ালো হোল :

চুনাপাথর যুক্ত অঞ্চলে দ্রবণ ক্ষয়ের ফলে অসংখ্য ছোটো ছোটো গর্তের সৃষ্টি হয়। এগুলিকে সিঙ্ক হোল বলে।

Join us on Telegram

যে অঞ্চলে চুনাপাথরের কারণ বেশি থাকে, সেখানে সিঙ্ক হোলের ওপরের দিকে বেশি ক্ষয় হয় এবং ক্ষয় প্রাপ্ত পদার্থসমূহ নীচের দিকে অপসারিত হয়। ভূ-পৃষ্ঠের ওপর দিকে দ্রবণ ক্ষয় বেশি এবং নীচের দিকে কম হয় বলে সিঙ্ক হোলের আকৃতি ফানেলের মতো হয়।

সিঙ্ক হোলের ওপরে যদি মাটির আবরণ না থাকে এবং জল ভূ-পৃষ্ঠ থেকে সরাসরি দারণ দিয়ে ভূ-গর্ভে চলে যায়, তখন তাকে সোয়ালো হোল বলে। সোয়ালো হোলের মুখ থেকে ভূ-অভ্যন্তরে বিস্তৃত সুরঙ্গ পথটিকে পোনর বলে। ইংল্যান্ডের গ্যাপিং মাইল সোয়ালো হোলের উদাহরণ।

(iii) ডোলাইন :

বেশি দারণযুক্ত বিশুদ্ধ চুনাপাথর দ্বারা গঠিত সমতল বা শুষ্ক নদী উপত্যকায় দ্রবণজনিত নিম্নমুখী ক্ষয়ের ফলে সিঙ্ক হোলগুলি ক্রমশ বড়ো হতে থাকে। এরূপ বড়ো বড়ো সিঙ্ক হোলগুলিকে পূর্বতন যুগোস্লাভিয়ায় ডোলাইন বলে

এদের গভীরতা 10-100 মিটার এবং আয়তন 60-1000 বর্গ মিটার পর্যন্ত হয়। সময় যত বাড়তে থাকে, ততোই ডোলাইনের সংখ্যা এবং ক্ষেত্রফল বৃদ্ধি পায় ।

ডোলাইনগুলি দুভাবে গঠিত হয়—

(ক) দ্রবণজনিত নিম্নমুখী ক্ষয়ের ফলে একাধিক সিঙ্ক হোল মিলিত হয়ে এবং

(খ) থর্নবেরীর মতে গুহার ছাদ ধ্বসে গিয়ে। অন্ধ্রপ্রদেশের বোরা গুহার ফানেল আকৃতির গর্তটি একটি আদর্শ ডোলাইন।

(iv) স্ট্যালাকটাইট ও স্ট্যালাগমাইট :

চুনাপাথরের ফাটলের মধ্যে দিয়ে জল চুঁইয়ে বিন্দুর আকারে পড়তে থাকে। বাষ্পীভবনের জন্য ক্যালশিয়াম কার্বোনেট সঞ্চিত হয় এবং স্তম্ভের আকারে বটগাছের ঝুরির মত চুনাপাথরের ছাদ থেকে ঝুলতে থাকে। এগুলিকে স্ট্যালাকটাইট বলে।

ফাটলের নীচে গর্তের মেঝেতে চুনমিশ্রিত জল পড়ে এবং বাষ্পীভবনের ফলে ওই স্থানে চুনের সঞ্জয় বৃদ্ধি পেতে থাকে। কালক্রমে স্তম্ভের আকারে মেঝে থেকে ওপরের দিকে উঠতে থাকে। এগুলিকে স্ট্যালাগমাইট বলে। অনেক সময় স্ট্যালাকটাইট ও স্ট্যালাগমাইট যুক্ত হয়ে স্তম্ভের সৃষ্টি করে।

ভারতের মেঘালয়ে চেরা মালভূমিতে এবং অন্ধ্রপ্রদেশের বোরা গুহায় এই ধরনের ভূমিরূপ দেখা যায়।

উচ্চমাধ্যমিক ২০১৫ ইতিহাসের অন্যান্য প্রশ্ন ও উত্তর গুলি দেখার জন্য এখানে ক্লিক করো

উচ্চমাধ্যমিকের বিগত বছরের প্রশ্ন ও উত্তর PDF ডাউনলোড করার জন্য এখানে ক্লিক করো।

Source: wbchse.nic.in

Students Care

স্টুডেন্টস কেয়ারে সকলকে স্বাগতম! বাংলা ভাষায় জ্ঞান চর্চার সমস্ত খবরা-খবরের একটি অনলাইন পোর্টাল "স্টুডেন্ট কেয়ার"। পশ্চিমবঙ্গের সকল বিদ্যালয়, মহাবিদ্যালয় ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের এবং সমস্ত চাকুরী প্রার্থীদের জন্য, এছাড়াও সকল জ্ঞান পিপাসু জ্ঞানী-গুণী ব্যক্তিবর্গদের সুবিধার্থে আমাদের এই ক্ষুদ্র প্রচেষ্টা।  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: স্টুডেন্টস কেয়ার কতৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত !!