মাধ্যমিকের মার্কশিট সংগ্রহের আগে এই নির্দেশিকা গুলি জেনে নিন

এখান থেকে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  

প্রতি বছরের মত মাধ্যমিকে এ বারও জেলার জয়জয়কার। এবছর পাসের হার নতুন রেকর্ড গড়েছে। পাসের হার বেড়ে হয়েছে ৮৬.৩৪ শতাংশ। এ বছর মেধা তালিকায় প্রথম ১০ জনের মধ্যে স্থান পেয়েছে ৮৪ জন। তার মধ্যে কলকাতার এক জনও নেই। সবচেয়ে বেশি পাশের হার পূর্ব মেদিনীপুর জেলায়। এ বছর ৭০০-র মধ্যে ৬৯৪ নম্বর পেয়ে মাধ্যমিকে প্রথম হয়েছে পূর্ব বর্ধমানের মেমারির অরিত্র পাল। সে মেমারি বিদ্যাসাগর মেমোরিয়াল স্কুলের ছাত্র। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে দু’জন— বাঁকুড়ার সায়ন্তন গড়াই ও পূর্ব বর্ধমানের অভিক দাস। তাদের প্রাপ্ত নম্বর ৬৯৩।  ৬৯০ নম্বর পেয়ে তৃতীয় স্থান অধিকার করেছে তিন জন। তারা হল বাঁকুড়ার সৌম্য পাঠক, পূর্ব মেদিনীপুরের দেবষ্মিতা মহাপাত্র, উত্তর ২৪ পরগনার অরিত্র মাইতি।

এবার বিশ্ব মহামারির মাঝেই প্রকাশিত হয়েছে মাধ্যমিকের ফলাফল। ছাত্র-ছাত্রীদের সুরক্ষার কথা ভেবে মার্কশিট দেওয়ার ক্ষেত্রে রদবদল এনেছে পর্ষদ। এবার পড়ুয়া নয়, অভিভাবকদের হাতে মার্কশিট তুলে দেবে স্কুল কর্তৃপক্ষ।

প্রতিবছরের ন্যায় ফলপ্রকাশের দিনে মার্কশিট দেওয়ার প্রথায় রদবদল করা হয়েছে। এবছর ফলপ্রকাশের দিনে নয় বরং করোনার জেরে মাধ্যমিকের মার্কশিট পেতে প্রায় এক সপ্তাহের অপেক্ষা । মাধ্যমিকের মার্কশিট পাওয়া যাবে আগামী ২২ ও ২৩ জুলাই। স্কুল থেকে মার্কশিট দেওয়া নিয়ে এবার তৈরি হয়েছে গাইডলাইন। সেই নির্দেশিকার কি বলা হয়েছে আগে জেনে নিন- 

১) এবার কোনও পড়ুয়ার হাতে মার্কশিট দেওয়া হবে না । মার্কশিট দেওয়া হবে অভিভাবকদের ।

২) মার্কশিট সংগ্রহ করার জন্য একসঙ্গে যেন অনেকে স্কুলে হাজির না হন ।

৩) মার্কশিট বিলির ক্ষেত্রে স্কুলগুলিকে নির্দিষ্ট সময় ভাগ করে দিতে হবে ।

৪) কোন পড়ুয়ার মার্কশিট কখন দেওয়া হবে তা আগে থেকে সংশ্লিষ্ট স্কুল গুলি থেকে অভিভাবকদের জানাতে হবে।

করোনা আবহে বদলে গিয়েছে নিয়ম, মার্কশিট সংগ্রহের জন্য বিশেষ নির্দেশিকা জারি করল পর্ষদ
করোনা আবহে বদলে গিয়েছে নিয়ম, মার্কশিট সংগ্রহের জন্য বিশেষ নির্দেশিকা জারি করল পর্ষদ

৫) অভিভাবককে মার্কশিট নিতে তাঁর পরিচয়পত্র এবং পড়ুয়ার সঙ্গে সম্পর্কের নথি নিয়ে স্কুলে যেতে হবে । পড়ুয়ার অ্যাডমিট কার্ড এবং রেজিস্ট্রেশন সার্টিফিকেট নিয়ে অভিভাবককে স্কুলে যেতে হবে ।

৬) মার্কশিট বিলির সময় শিক্ষক, অভিভাবক সকলকেই করোনার স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে । প্রত্যেককে অবশ্যই মাস্ক পরতে হবে । নির্দিষ্ট সময় অন্তর হাত স্যানিটাইজ করতে হবে এবং অবশ্যই সামাজিক দূরত্ব মেনে চলতে হবে।

৭) কোনও অভিভাবক কোনো কারনে স্কুলে যেতে না পারলে সেক্ষেত্রে বিশেষ ব্যবস্থা নেবে স্কুল । সেরকম বিশেষ ক্ষেত্রে মিড-ডে মিলের মতোই পড়ুয়ার বাড়িতে মার্কশিট পৌঁছে দিতে হবে স্কুলকে ।

আপনার জন্য আরও রয়েছে পড়ুন

স্টুডেন্টস কেয়ারে লেখা পাঠাতে হলে এখানে ক্লিক করুণ

স্টুডেন্টস কেয়ার মূলত ইউজার জেনারেটেড বা স্টুডেন্টস কেয়ারের পাঠক-লেখকদের তৈরি করা কন্টেন্ট প্রকাশ করছে। আপনি চাইলে ৩০০ বা তার অধীক শব্দের মাঝে যে কোনো পছন্দমত লেখা, ছোট গল্প, সাধারণ জ্ঞান, জানা অজানা তথ্য, কারেন্ট আপডেট, ছাত্র-ছাত্রীদের উপযোগী লেখা, ফিচার স্টুডেন্টস কেয়ারে কন্ট্রিবিউট করতে পারেন। ১-৩ দিনের মাঝে লেখা মানসম্মত হলে তা প্রকাশিত হবে। কন্ট্রিবিউশন কন্টেন্টের জন্য কোনো সম্মানীর ব্যবস্থা নেই। তবে স্টুডেন্টস কেয়ার টিমের কন্টেন্ট রাইটার টিমে যুক্ত হতে এটা আপনাকে সহযোগিতা করবে। লেখা প্রকাশের আগে আমাদের নীতিমালা ভালো করে পড়ে নিন। যে কোনো প্রয়োজনে আমাদের সাথে যোগাযোগ করতে চাইলে এখানে ক্লিক করুন।

0 0 vote
Article Rating

Students Care

স্টুডেন্টস কেয়ারে সকলকে স্বাগতম! বাংলা ভাষায় জ্ঞান চর্চার সমস্ত খবরা-খবরের একটি অনলাইন পোর্টাল "স্টুডেন্ট কেয়ার"। পশ্চিমবঙ্গের সকল বিদ্যালয়, মহাবিদ্যালয় ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের এবং সমস্ত চাকুরী প্রার্থীদের জন্য, এছাড়াও সকল জ্ঞান পিপাসু জ্ঞানী-গুণী ব্যক্তিবর্গদের সুবিধার্থে আমাদের এই ক্ষুদ্র প্রচেষ্টা।

Subscribe
Notify of
guest

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

2 Comments
Most Voted
Newest Oldest
Inline Feedbacks
View all comments
error: স্টুডেন্টস কেয়ার কতৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত !!